ঢাকা, সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২১ শাওয়াল ১৪৪৩

কুমিল্লাকে ১৫১ রানে থামাল বরিশাল

প্রকাশনার সময়: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ১৯:৩০ | আপডেট: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ১৯:৩৩

সবার আগে ফাইনাল নিশ্চিত করে বেশ ফুরফুরে মেজাজেই ফরচুন বরিশাল। তবে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের ফাইনালে শুক্রবার কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের মুখোমুখি হয়ে শুরুতে যে ঝড়ের সম্মুখীন হয় তারা, সেটি থেকে বের হয়ে আসার জন্য অধিনায়ক সাকিব আল হাসান বেশ বাহবা পাচ্ছেন। মিরপুরে আজও উঠেছিল সুনীল নারাইন ঝড়। সে তাণ্ডব থামাতে বেশ ঠাণ্ডা মাথার অধিনায়কত্বে বোলিং অ্যাটাক সাজান সাকিব। ফলও মিলেছে তাতে। সাকিবের অধিনায়কত্ব গুনেই কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে ১৫১ রানে থামাতে পেরেছে বরিশাল।

প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ঝড়ো শুরু করেন সুনিল নারিন। মুজিব উর রহমানের করা প্রথম ওভার থেকে ১৮ রান নেন নারিন। শফিকুল ইসলামের করা দ্বিতীয় ওভার থেকেও নারিন নেন ১৮ রান। দুই ওভারে কুমিল্লার রান তখন ৩৬। তৃতীয় ওভারে বল হাতে আসেন সাকিব আল হাসান। ওভারের শেষ বলে লিটন দাসকে বোল্ড করলে ভাঙে ৪০ রানের উদ্বোধনী জুটি। লিটন ৬ বলে ৪ রান করে ফেরেন।

তবে অপর প্রান্তে ঝড় অব্যহত রাখেন নারিন। সাকিব আল হাসানের দ্বিতীয় ওভারের শেষ বলে তিন রান নিয়ে পূর্ণ করেন অর্ধশতক। দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে ১৩ বলে অর্ধশতকের পর ফাইনালে ২১ বলে অর্ধশতক করেন নারিন।

ষষ্ঠ ওভারে মেহেদি হাসান রানার স্লোয়ার বলে বাউন্ডারি লাইনে নাজমুল হোসেন শান্তর হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন নারিন। আউট হওয়ার আগে ২৩ বলে ৫টি চার আর ৫টি ছয়ে ৫৭ রান করেন নারিন।

নারিন ফেরার পর চাপে পড়ে দ্রুত উইকেট হারাতে থাকে কুমিল্লা। ৭ম ওভারে মাহমুদুল হাসান জয় রান আউট হন দলীয় ৭৩ রানে। এরপর ফাফ ডু প্লেসিস ৭ বলে ৪ আর ইমরুল কায়েস ১২ বলে ১২ রান করে ব্রাভোর শিকার হয়ে ফিরলে ১০ ওভারে ৯৪ রানে ৫ উইকেটের দলে পরিণত হয় কুমিল্লা।

১১তম ওভারে আরও এক ধাক্কা কুমিল্লার ব্যাটিং লাইনআপে। আরিফুল ইসলাম রানের খাতা খোলার আগেই ফেরেন মুজিবের বলে বোল্ড হয়ে। টানা দুই ম্যাচে কোনো রানই করতে পারলেন না টাইগার এই ব্যাটার।

এরপর আবু হায়দার রনিকে সঙ্গে নিয়ে বিপর্যয় সামাল দেন মঈন আলী। অন্যদিকে সাকিব আল হাসানের দুর্দান্ত অধিনায়কত্বের সঙ্গে বরিশালের বোলাররা দুর্দান্ত বোলিং করতে থাকেন। এতেই কুমিল্লাকে কোণঠাসা করে ফেলে। ৫ ওভার ২ বলে ৬৯ রানে ১ উইকেট থেকে ব্যাটিংয়ে ধস নামা কুমিল্লার হাল ধরেন আবু হায়দার রনি ও মঈন আলী। এই দুই ব্যাটার ৭ম উইকেটে গড়েন ৫৪ রানের জুটি। শেষ দিকে মঈন আলী ৩২ বলে ৩৮ রান করে রানআউট হন আর রনি ২৭ বলে ১৯ রান করে শফিকুলে বলে আউট হন।

এতেই নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১৫১ রান করে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। বরিশালের হয়ে দুটি করে উইকেট নেন মুজিব উর রহমান এবং শফিকুল ইসলাম। আর একটি করে উইকেট নেন সাকিব আল হাসান, ডুয়েন ব্রাভো এবং মেহেদি হাসান রানা।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ড

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স: ২০ ওভার; ১৫১/০; (নারিন ৫৭, লিটন ৪, জয় ৮, ডু প্লেসিস ৪, ইমরুল ১২, মঈন ৩৮, রনি ১৯, শহিদুল ০, তানভির ০*, মোস্তাফিজ ০*); (মুজিব ৪-০-২৭-২, শফিকুল ২-০-২৪-০, সাকিব ৪-০-৩০-১, ব্রাভো ৪-০-২৬-১, রানা ৪-০-৩৪-১)।

নয়া শতাব্দী/এস

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আমার এলাকার সংবাদ