ঢাকা, সোমবার, ৩ অক্টোবর ২০২২, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯, ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

মৃত্যুচিন্তা বদলে দেয় জীবন

প্রকাশনার সময়: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৮:২৮

নশ্বর এই পৃথিবীতে মুহূর্তের মধ্যে কত কিছুর মালিক হয়ে যাই আমরা। কিন্তু একদিন সব কিছু ছেড়ে যেতে হয় পরপারে। কোনো কিছুই সঙ্গে নেয়া যায় না— প্রিয় ঘর, গাড়ি, বিছানা, কাপড়; কোনো কিছুই!

দুনিয়ার জীবনে সম্পদ অর্জনে কত প্রতিযোগিতাই না করে মানুষ, প্রয়োজনে মামলা-মোকাদ্দমা করে, অনেকে অবৈধভাবে সম্পদ দখল করে; কিন্তু এসবের কিছুই মৃত্যুকালে নিজের সঙ্গে নেয়া যায় না। পৃথিবীর কোনো শক্তি মানুষকে মৃত্যুর হাত থেকে বাঁচিয়ে রাখতে পারে না। মৃত্যু অবশ্যম্ভাবী, চিরন্তন অবিচল সত্য।

অনেকে রোগ প্রতিষেধকের ওষুধ খেয়েছে, কিন্তু সেই ওষুধ তাকে সুস্থ করতে পারেনি। তাকে নিরাময় এনে দিতে পারেনি; বরং সুস্থতার বদলে অসুস্থতা বাড়িয়ে দেয়। জীবনকে মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড় করিয়ে দেয়।

মৃত্যু নিয়ে আমাদের চিন্তা করা উচিত। একান্ত আয়োজনে ভাবা দরকার। কারণ, মৃত্যু চিন্তা বদলে দেয় মানুষের জীবন। মানুষকে নতুন জীবনের সন্ধান দেয়। চিরস্থায়ী জীবনের দিকে আহ্বান করে। দুনিয়ার পেছনে সময় ও জীবন ব্যয়ের ব্যাপারে নিয়ন্ত্রণ করে। জীবনকে আল্লাহমুখী করে। আল্লাহ বলেন, ‘পার্থিব জীবন ধোঁকা ছাড়া অন্য কিছুই নয়।’ (সুরা আলে ইমরান: ১৮৬)

দুনিয়াতে টিকে থাকার লড়াইয়ে আমরা মিথ্যে কথা বলে লোক ঠকাই, মানুষের টাকা আত্মসাৎ করি, গরিবের পেটে লাথি মারি, মানুষকে দুঃখের নদে ভাসিয়ে দিই, আমাদের চিন্তা করা উচিত, এসব করে কি আমরা কখনও সুখী হতে পেরেছি? না কখনও সুখী হতে পারব।

আল্লাহ বলেন, ‘তোমরা জেনে রেখ, দুনিয়ার জীবন ক্রীড়া-কৌতুক, শোভা-সৌন্দর্য, পারস্পরিক গর্ব-অহংকার আর ধন-সম্পদ ও সন্তানাদিতে আধিক্যের প্রতিযোগিতা মাত্র। তার উদাহরণ হলো বৃষ্টি, আর তা থেকে উৎপন্ন শস্যাদি কৃষকের মনকে আনন্দে ভরে দেয়, তারপর তা পেকে যায়, তখন তুমি তাকে হলুদ বর্ণ দেখতে পাও, পরে তা খড় ভুষি হয়ে যায়। (আর আখেরাতের চিত্র অন্যরকম, পাপাচারীদের জন্য), আখেরাতে আছে কঠিন শাস্তি, (আর নেককারদের জন্য আছে) আল্লাহর ক্ষমা ও সন্তুষ্টি। আর দুনিয়ার জীবনটা তো ধোঁকার বস্তু ছাড়া আর কিছুই না।’ (সুরা হাদিদ: ২০)

জ্ঞানী তো তারাই, যারা পরকালের প্রতি আসক্ত হয়। দুনিয়ার প্রতি নিরাসক্ত হয়। পরকালের ভাবনাই জীবনে কল্যাণ বয়ে আনে। মনে রাখতে হবে, দুনিয়া হলো আখেরাতের সঞ্চয় অর্জনের জায়গা। এখানে কষ্ট হলেও আখেরাতের জন্য ফসল ফলাতে হবে। রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘একজন মুমিনের জন্য ইহকাল কয়েদখানা ও অবিশ্বাসীর জন্য জান্নাত।’ (মুসলিম: ২৯৫৬)

আরেক হাদিসে আছে, ‘যে দুনিয়াকে মহব্বত করল সে তার পরকালকে ক্ষতিগ্রস্ত করল। আর যে পরকালকে মহব্বত করল সে তার দুনিয়াকে ক্ষতিগ্রস্ত করল। সুতরাং তোমরা অস্থায়ী বস্তুর ওপর চিরস্থায়ী বস্তুকে প্রাধান্য দাও।’ (মুসনাদে আহমাদ)

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আমার এলাকার সংবাদ