ঢাকা, শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ১১ আষাঢ় ১৪২৯, ২৪ জিলকদ ১৪৪৩

ছেলেদের শার্টের বোতাম ডানদিকে আর মেয়েদের বাঁদিকে কেন?

প্রকাশনার সময়: ২০ জুন ২০২২, ০৫:২৬

ছেলেদের শার্টের বোতাম খোলা-লাগানোর ব্যবস্থা থাকে ডানদিকে। আর মেয়েদের শার্টে থাকে ঠিক তার উল্টো দিকে। কিন্তু কেন? এ নিয়ে বিভিন্ন তত্ত্ব প্রচলিত আছে। আছে যুক্তি-পাল্টা যুক্তি। আসুন জেনে নিই এমন কিছু যুক্তি যা নিয়ে হয়ত কখনোই ভাবা হয়নি-

এই পার্থক্য যে শুধু শার্টের ক্ষেত্রে এমনটা কিন্তু নয়। শাড়ির সঙ্গে যে ব্লাউজ রয়েছে, সেই ব্লাউজেও এই নীতি মানা হয়ে থাকে। কিন্তু এমন কেন করা হয়েছে, তা জানলে একটু অবাকই হতে হবে আপনাকে।

প্রথমেই এ প্রশ্নে উত্তর হিসেবে আমাদের মাথায় আসতে পারে ছেলে ও মেয়েদের পোশাকে পার্থক্য তৈরি করার জন্যই এমনটা করা হয়। এটি একটি কারণ হলেও মূল কারণ কিন্তু তা নয়।

এ প্রশ্নের উত্তর হিসেবে আরও একটি থিওরি রয়েছে। আর তা হলো মেয়েরা সাধারণত শিশুদের বাঁদিকে কোলে বা হাতে ধরে রাখে। এমন পরিস্থিতিতে মেয়েদের পোশাকের বোতাম খোলা বা লাগানোর প্রয়োজন হলে তারা ডান হাত ব্যবহার করলে বেশি সুবিধা পাবে।

একইভাবে প্রাচীন যুগে পুরুষরা তাদের ডান হাতে তলোয়ার ধরতেন। তাই পোশাকের বোতাম খোলা বা লাগানোর জন্য বাঁহাত ব্যবহার করা বেশি সুবিধাজনক। আর এ কারণে ছেলেদের পোশাকের বোতাম ঘর ডানদিকে রাখা হয়।

ইতিহাসেও একটি যুক্তি রয়েছে এ বিষয়ে। এ বিষয় সম্পর্কিত করা হয়েছে নেপোলিয়ন বোনাপার্টের সঙ্গে। প্রচলিত উপাখ্যানে রয়েছে, নেপোলিয়ন সবসময় তার জামায় একটি হাত ঢুকিয়ে রাখতেন।

সে সময় অনেক মেয়েই তাকে অনুসরণ করে এমনটা করত, যা নেপোলিয়নের পছন্দ হয় না। আর এ কারণে তিনি মেয়েদের বোতাম বাঁদিকে করার নির্দেশ দেন। যদিও এর কোনো সুনির্দিষ্ট প্রমাণ নেই। তবে কালক্রমে এ গল্পকাহিনি মানুষের কাছে বিশ্বাসযোগ্য হয়েছে।

এ ছাড়াও কথিত আছে, প্রাচীন যুগে মেয়েরা উভয় পা একই পাশে ঝুলিয়ে ঘোড়ায় চড়ত। এ কারণে বাঁদিকে বোতাম করা হলে বাতাস তার শার্ট ভেতরে নিয়ে যেত এবং বিপরীত দিকে এগোতে সহায়তা করত। এ কারণেও মেয়েদের পোশাকে বোতাম ঘর বাঁদিকে করা হতো।

তবে বর্তমান সময়ে ইউনিসেক্স ফ্যাশন বেশি জনপ্রিয়। ইউনিসেক্স ফ্যাশনের পোশাকে ছেলে ও মেয়েদের পোশাকে কোনো পার্থক্য করা হয় না। অর্থাৎ, একটি পোশাক মেয়ে ও ছেলে উভয়ই পরতে পারবে।

সূত্র: নিউজ ১৮ বাংলা

নয়া শতাব্দী/জেআই

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আমার এলাকার সংবাদ