ঢাকা | সোমবার ২ আগস্ট ২০২১, ১৮ শ্রাবণ ১৪২৮, ২২ জিলহজ ১৪৪২

পুষ্টি গুনাগুন ঠিক রেখে মাংস সংরক্ষণ পদ্ধতি

শতাব্দী ডেস্ক

প্রকাশনার সময়: ২০ জুলাই ২০২১, ১৬:৩৩ | আপডেট : ২০ জুলাই ২০২১, ১৬:৪২

ঈদ মানেই আনন্দ। আর কোরবানির ঈদের সথে বাড়তি যুক্ত হয় মাংস। ঈদের নামাজের পরেই গরু জবাইয়ের ধুম পড়ে যায়। আর তার কিছুক্ষণ পরে বাড়ি-ঘর মাংস দিয়ে ভরে যায়।

এসময় কোরবানির ঈদে গৃহিণীদের উপর বাড়তি চাপ পড়ে মাংস সংরক্ষণের। গৃহীনিরা মাংস সংরক্ষণ প্রক্রিয়া নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটান এসময়ে। তবে মাংস শুধু সংরক্ষণ করলেই হবে না। মাথায় রাখতে হবে মাংসের পুষ্টি ও গুনাগুন যেন নষ্ট না হয়ে যায়।

আজ পুষ্টি ও গুনাগুন ঠিক রেখে মাংস সংরক্ষণের কিছু পদ্ধতি জানাবে নয়া শতাব্দী।

পূর্ব প্রস্তুতি : কোরবানির মাংস সংরক্ষণ করার জন্য পূর্ব থেকই কিছু প্রস্তুতি নেওয়া জরুরি।

ডিপ ফ্রিজে সংরক্ষণ করলে আগেই ডিপ ফ্রিজের পুরনো সকল খাবার সরিয়ে ফেলুন। ফ্রিজ একদম খালি করে ধুয়ে মুছে পরিষ্কার করে রাখুন। আগে থেকে জমে থাকা রক্ত ও ময়লা থেকে জীবাণু মাংসের স্বাদ-গুনাগুন নষ্ট করে দিতে পারে। তাই ফ্রিজের পরিচ্ছন্নতা অত্যন্ত জরুরী।

বাজার থেকে কিছু জিপবাগ কিনে রাখুন। অথবা আগে থেকেই কিছু পলিব্যাগ জমিয়ে ‍রাখুন। কারণ ঈদের দিন আপনাকে পলিব্যাগে করেই মাংসগুলো ফ্রিজে রাখতে হবে। সেই সাথে খেয়াল রাখুন কসাইয়ের মাংস কাটার স্থানটি যেন পরিচ্ছন্ন হয়। ধূলাবালিযুক্ত স্থানে মাংস কাটলে রান্নার সময়ে খাবার বালি বালি লাগতে পারে।

ডিপ ফ্রিজে মাংস সংরক্ষণ পদ্ধতি : মাংস সংরক্ষণের আগে ভালোভাবে ধুয়ে রক্ত পরিষ্কার করে নিতে হবে। কারণ মাংসে রক্ত লেগে থাকলে মাংস পচে যেতে পারে। মাংস বড় চালনিতে রেখে মাংসের পানি ঝরিয়ে ফ্যানের নিচে রেখে শুকাতে দিন। পানি ঝরে গেলে পলিথিনের প্যাকেটে কিংবা জিপারে ভরে মাংস ফ্রিজে সংরক্ষণ করুন।

মাংস যদি ধুতে না চান তাহলে পরিষ্কার শুকনা কাপড় দিয়ে মাংসের গায়ে লেগে থাকা রক্ত ভালমতো মুছে নিতে হবে। এবার পলিথিনে করে ফ্রিজে মাংস সংরক্ষণ করুন।

ফ্রিজে মাংস সংরক্ষণের জন্য একটু মোটা পলিথিন ব্যবহার করুন। তাহলে ফ্রিজ থেকে মাংস বের করার সময় প্যাকেট ছিঁড়বে না।

মাঝে মাঝে ফ্রিজে রাখা প্যাকেটগুলো একটু নাড়াচাড়া করুন। এতে প্যাকেট একটার সঙ্গে অন্যটা লেগে যাবে না। মাংস সংরক্ষণ করার জন্য অবশ্যই পরিষ্কার পলিথিন ব্যবহার করতে হবে।

ডিপ ফ্রিজে মাংস সংরক্ষণ করলে ফ্রিজের তাপমাত্রা এমন রাখতে হবে যেন ফ্রিজে মাংস সবসময় বরফ হয়ে থাকে।

আগুনে জ্বাল দিয়ে মাংস সংরক্ষণ : যদি আগুনে জ্বাল দিয়ে মাংস সংরক্ষণ করেন তাহলে মাংসে চর্বির পরিমাণ একটু বেশি রাখতে হবে। এতে মাংস দীর্ঘদিন ভালো থাকে। প্রথমে মাংস ভালোভাবে ধুয়ে বড় একটা হাড়িতে/ পাতিলে নিন। এবার হলুদ ও লবণ মিশিয়ে পরিমাণমতো পানি দিয়ে মাংস জ্বাল দিন। এ পদ্ধতিতে দিনে কমপক্ষে ২ বার নিয়ম করে মাংস জ্বাল দিতে হবে।

রোদে শুকিয়ে মাংস সংরক্ষণ : রোদে শুকিয়ে মাংস সংরক্ষণ করতে হলে মাংস থেকে চর্বি ছাড়িয়ে নিতে হবে।

প্রথমে মাংস পরিস্কার করে ধুয়ে ছোট ছোট টুকরা করে নিন। এরপর একটি লম্বা তারে একটার পর একটা মাংস গেঁথে নিন। কাপড় শুকানোর মতো করে ছাদে বা বারান্দায় গাঁথা মাংস টাঙিয়ে দিন। এছাড়া চুলার উপরে তার বেঁধেও আগুনের তাপে মাংস শুকানো যাবে। এই উপায়ে মাংস সংরক্ষণ করলে মাংসের সমস্ত পানি টেনে মাংস একদম শুকিয়ে যায়, ফলে দীর্ঘদিন তা ভালো থাকে।

ছাদে মাংস শুকাতে হলে পাতলা কাপড় বা নেট দিয়ে মাংস ঢেকে দিন। যাতে ধুলোবালি পড়ে মাংস নোংরা না হয়। পরপর ৫-৬ দিন মাংস রোদে দিন। মাংস শুকিয়ে একদম শক্ত হলে মুখ বন্ধ করা পাত্রে বা টিনের কৌটায় ভরে ভালো করে মুখ বন্ধ করে রাখুন। মাঝে মাঝে কৌটা ধরে মাংস রোদে দিন। তাহলে পোকার আক্রমণ হবে না।

রোদে শুকানো মাংস রান্না করার কমপক্ষে ১ ঘন্টা আগে হালকা গরম পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। এতে মাংস নরম হবে।

নয়া শতাব্দী/জেআই

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এই পাতার আরও খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
বেটা ভার্সন
x