ঢাকা, শুক্রবার, ২১ জানুয়ারি ২০২২, ৭ মাঘ ১৪২৮, ১৭ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

স্মার্টফোন ধীরে চার্জ হওয়ার ৫টি কারণ 

প্রকাশনার সময়: ২৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:১৮

বর্তমান সময়ে স্মার্টফোন ব্যবহার করেন না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দায়। তবে অনেকেই জানেনা এই ফোনের ধীরে চার্জ হওয়ার কারণ।

মোবাইলে ধীরে চার্জ হলেই সমাধানের জন্য অনেকে ব্যাটারি পরিবর্তন থেকে শুরু করে ফোন পর্যন্ত পরিবর্তন করে ফেলেন। কিন্তু নতুন ফোনেও কয়েক মাস ব্যবহারের পর এই সমস্যা হতে পারে। তাই আপনাদের এই সমস্যার কারণ খুঁজে বের করতে হবে, তাহলেই এর সমাধান পেয়ে যাবেন।

১. খারাপ আনুষাঙ্গিক

আপনার ফোনের আগের চেয়ে ধীর গতিতে চার্জ হওয়ার পেছনে সবচেয়ে সহজবোধ্য কারণটির সাথে আপনার ফোনের কোন সম্পর্ক নাও থাকতে পারে। এর পরিবর্তে, আপনি একটি খারাপ কর্ড বা অ্যাডাপ্টার, বা দুর্বল শক্তি উত্স হতে পারে। একটি দুর্বল, ত্রুটিপূর্ণ, বা ত্রুটিপূর্ণ পাওয়ার আউটলেট আপনার ফোনকে খুব ধীরে ধীরে চার্জ করতে পারে। পুরানো সকেট এবং ঘরের তারের স্কেচ এর কারণেও ধীর গতিতে চার্জ হতে পারে। ইউএসবি কেবলগুলি একাধিক ফোনে ব্যবহার করা, বাঁকানো বা এমন জায়গায় রাখা যেখানে তাপমাত্রা উল্লেখযোগ্যভাবে পরিবর্তিত হয় এমনসব কারণেও আপনার ফোন ধীর গতিতে চার্জ হতে পারে। অতএব, অন্য কিছু করার আগে, কেবল পরিবর্তন করুন এবং দেখুন যে সমস্যাটি দূর হয় কিনা।

২. চার্জিং পোর্ট

প্রায়শই ইউএসবি পোর্টের ছোট ধাতব সংযোগকারী কিছুটা বাঁকা হয়ে যেতে পারে যার অর্থ এটি চার্জিং ক্যাবলের সাথে সঠিক যোগাযোগ করে না। এটি ঠিক করতে, আপনার ফোনটি বন্ধ করুন, এবং যদি আপনি পারেন তবে ব্যাটারিটি সরিয়ে ফেলুন। এবার কোন সূক্ষ্ম ধাতব বস্ত্তর সহায়তায় বাঁকানো অংশটি সোজা করার চেষ্টা করুন এবং পোর্টটি ভালো করে পরিষ্কার করুন। তারপর, আপনার ব্যাটারি আবার চালু করুন, ডিভাইসে পাওয়ার দিন এবং আবার চার্জ করার চেষ্টা করুন।

৩. ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপস

কিছু অ্যাপ উচ্চ ব্যাটারির ব্যবহার দেখাতে পারে কারণ আপনি সেগুলি প্রায়ই ব্যবহার করে থাকেন। এরকম অ্যাপ্লিকেশনগুলো খুঁজে বের করুন আপনি কম ব্যবহার করেন কিন্তু ব্যাটারির ব্যবহার বেশি। ব্যাকগ্রাউন্ডে অনেক বেশি অ্যাপ্লিকেশন চলার ফলে শুধু আপনার ফোনের চার্জের হার ধীর হয়ে যায় না বরং আপনার ফোনের RAM ও অনেকটা খেয়ে ফেলে। এছাড়াও, ফোরগ্রাউন্ডে সক্রিয়ভাবে অনেকগুলি অ্যাপ চলার কারণেও ধীর গতির সৃষ্টি হতে পারে।

ফোনে সেটিংস অপশনটি ওপেন করুন। ‘অ্যাপ্লিকেশন ম্যানেজার’ বা ‘অ্যাপস’ নামের বিভাগটি খুঁজে বের করুন। আবার কিছু ফোনের ক্ষেত্রে setting > general > apps ধাপগুলো অণুসরণ করে ক্ষতিকর অ্যাপগুলো খুঁজে বের করে বন্ধ করে দিন।

৪.অনেক পুরনো ব্যাটারি

যদি আপনার ফোনের বয়স দুই বা তিন বছরের বেশি হয়, এবং সেই সময়কালে এর ব্যাপক ব্যবহার হয়েছে, তাহলে ব্যাটারিটি পরিবর্তন করাই উত্তম। আনার ফোন যদি অপসারণযোগ্য ব্যাটারি থাকে তাহলে তা পরিবর্তন করে ফেলুন আর যদি অপসারণযোগ্য না হয় তাহলে ফোনটি মেরামতের দোকানে নিয়ে যেতে হবে।

৫. চার্জ করার সময় ফোন ব্যবহার করা

চার্জ করার সময় ফোন ব্যবহার করা আপনার স্মার্টফোনটির সরাসরি কোন ক্ষতি করে না কিন্তু আপনার ব্যাটারি ধীরে চার্জ হওয়ার ক্ষেত্রে এটি একটি বড় কারণ হতে পারে। ফোন একই সময় ব্যবহার এবং চার্জের জন্য শক্তি সরবরাহ করতে অনেকটা সংগ্রাম করতে থাকে যার ফলে ব্যাটারি অতিরিক্ত গরম হয়ে যায় যা আপনার ব্যাটারির লাইফ টাইম কমিয়ে দেয়। আপনি কি চার্জ করার সময়ও ব্যবহার করে থাকেন? সম্ভবত এই কারণেই রিচার্জ হতে এত সময় নেয়। তাই আপনার ফোনটি নিচে রাখুন এবং এটি শান্তিতে চার্জ হতে দিন।

নয়া শতাব্দী/এম

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়