ঢাকা | বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ৫ কার্তিক ১৪২৮

হিন্দি ছবি আমদানির বিরোধিতায় শিল্পীরা

প্রকাশনার সময়: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:০৯

সোহেল রানা

করোনার কারণে সিনেমা হলের প্রতি মানুষের যে অনীহা তৈরি হয়েছে, আমার তো মনে হয় না পৃথিবীর যে কোনো ভাষার সিনেমা এলেও সেখানে লোকে দেখতে আসবে? আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি, আগে হলগুলো চলার মতো অবস্থা তৈরি করতে হবে। সিকিউরড একটা পরিবেশ তৈরি করতে হবে। আর সেটাও করা উচিত কোভিড পরিস্থিতি শেষ হওয়ার পর। এটা এ জন্য বলছি, কোভিড পরিস্থিতি যতদিন পৃথিবীতে থাকবে সিনেমা হলে অন্তত মানুষ আসবে না। এখন তো এমনিতেই খারাপ সময়। যখন স্বাভাবিক সময় ছিল তখনো তো হল মালিকরা ভারতীয় ছবি এনে চালিয়েছেন, কই দর্শক কি হুমড়ি খেয়ে পড়েছেন? করোনাকালে দর্শক সংকট কাটাতে হিন্দি সিনেমা এনে প্রেক্ষাগৃহ চালু রাখা আমার কাছে কোনো সুন্দর সমাধান মনে হয় না। দেশ আগে কোভিডমুক্ত হোক। তারপর সবাই বসে দেশের সিনেমা কী সিদ্ধান্ত নিলে ভালো হবে, শিল্পী-কলাকুশলীরা বাঁচতে পারবে, সিনেমা হল মালিকদের ভালো হবেÑ সবাই মিলে সিদ্ধান্ত নিলেই ভালো হয়। অনেক দিক বিবেচনা করে একটা সিদ্ধান্ত নেয়া দরকার।

আলমগীর

হিন্দি সিনেমা বন্ধ করে গেছেন আমাদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। আর এখন দেশ পরিচালনা করছেন তারই সুযোগ্যকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আমার মনে হয় তিনি সব বুঝেশুনেই সিদ্ধান্ত দেবেন। আমি হল মালিকদের পক্ষে বা বিপক্ষে কথা বলছি না, কারণ হিন্দি ছবি নিয়ে সিদ্ধান্ত দিয়ে গেছেন শেখ মুজিবুর রহমান। সার্বিকভাবে যদি আমি বলি, হল তো এমনিতেই চলছে না। হিন্দি সিনেমা আনলে কি হল চলবে? ইন্ডিয়াতেও তো হিন্দি ছবি চলছে না। এখন একটা অজুহাতে হিন্দি ছবি নিয়ে আসবে, এটা আমি ঠিক বুঝতে পারছি না! তবে এই সিদ্ধান্তটা সরকারিভাবে নিলেই বেটার। হল মালিক বা আমরা প্রযোজক যারা আছি, তারা তো অনেক কিছুই চাই, সেটা সরকার এখন বিবেচনা করুক। সেটাই আমার ভালো মনে হয়।

অমিত হাসান

দেশীয় চলচ্চিত্রের জন্য হিন্দি সিনেমা ইতিবাচক কিছু বয়ে আনবে না। এমন সিদ্ধান্তে হয়তো হল বাঁচবে, কিন্তু বাংলা চলচ্চিত্র বাঁচবে কিনা এটা নিয়ে আমার সন্দেহ আছে! হিন্দি সিনেমার আমদানির বিষয়টি শিল্পী হিসেবে ব্যক্তিগতভাবে আমার কাছে অপছন্দের। তবে চলচ্চিত্রের বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা আছেন, প্রযোজক সমিতির নেতারা আছেন-আশা করছি, তারা এ বিষয়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নেবেন।

ডিপজল

আমরা বাংলাদেশি মানুষ, আমাদের সিনেমা হলে বাংলা সিনেমা চলবে। এটাই আমাদের দাবি। হিন্দি ইংরেজি ছবি আমাদের কেন চালাইতে হবে? হিন্দি সংস্কৃতির সঙ্গে বাংলা সংস্কৃতি কি মিলে? হিন্দি তো আমাদের সংস্কৃতিবিরোধী। আমরা চাই না, হিন্দি ছবি আমাদের সিনেমা হলে চলুক। এতে দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট হবে। শেষ পর্যন্ত এমন সিদ্ধান্ত যদি হয়ই, তাহলে সেটা অন্যায় হবে।

নয়া শতাব্দী/এমআর

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
বেটা ভার্সন