ঢাকা, শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৬ শাওয়াল ১৪৪৩

প্রতিশ্রুতি রেখেছেন ভিসি সৌমিত্র শেখর 

প্রকাশনার সময়: ২০ জানুয়ারি ২০২২, ১৮:৪০ | আপডেট: ২০ জানুয়ারি ২০২২, ১৮:৫৮

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে নবনির্মিত দুটি আবাসিক হল ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল’ ও ‘বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল’-এর আসন বরাদ্দ ও চাবি হস্তান্তর করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৌমিত্র শেখর। এরমধ্য দিয়ে নির্ধারিত সময়ের একদিন আগেই ছাত্রছাত্রীদেরকে দেওয়া হল চালু করার অঙ্গীকার পূরণ করেছেন তিনি।

গত ১ জানুয়ারিতে নবনির্মিত দুটি হল চালুর দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা উপাচার্যের বাসভবন ‘দুখুমিয়া বাংলো’ অবরোধ এবং আমরণ অনশন করার কর্মসূচিতে উপাচার্য বলেছিলেন, ২১ জানুয়ারির পূর্বে হল খুলে দেওয়ার ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। সেই ঘোষণার ধারাবাহিকতায় উপাচার্যের নেতৃত্বে প্রশাসনের নিরলস প্রচেষ্টার ফলে ঘোষিত সময়ের একদিন আগেই শিক্ষার্থীদের হল চালু করা সম্ভব হয়েছে। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) দুপুরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের আবাসিক শিক্ষার্থীদের আসন বরাদ্দে তালিকা প্রকাশ ও চাবি হস্তান্তর অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রভোস্ট মাসুম হাওলাদার ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের প্রভোস্ট নুসরাত শারমিনের যুগ্ম সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপাচার্য প্রফেসর ড. সৌমিত্র শেখর। বহুল প্রতীক্ষিত নতুন হল চালু উপলক্ষে শিক্ষার্থীদের মধ্যে সাজ সাজ রব পড়ে গেছে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে হল চালু করায় তারা উপাচার্য প্রতি তাদের কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেছেন।

অনুষ্ঠানে হলে সিট বরাদ্দ পাওয়া আবাসিক শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে উপাচার্য সৌমিত্র শেখর বলেন, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলো হয়ে উঠবে একাডেমিক পড়াশুনার প্রধান জায়গা। আমরা সুনির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ক্লাস করবো, সুনির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পরীক্ষা নিব। সেজন্য আমরা একাডেমিক ক্যালেন্ডার করে দিচ্ছি। ছাত্ররা যেমন হলে উঠবে তেমনি পড়াশুনা শেষে হল থেকে বেরিয়ে যেতে হবে-এ ধরনের মানসিকতা নিয়ে সকলকে মিলেমিশে হলে থাকতে হবে।

তিনি বলেন, আমাদের এই শিক্ষাবান্ধব সরকার শিক্ষার জন্য বিনিয়োগে প্রস্তুত। আমাদের অনেক পরিকল্পনা আছে এই বিশ্ববিদ্যালয়কে নিয়ে। আপনারা শুধু একটি শিক্ষাবান্ধব, শান্তিপূর্ণ পরিবেশ তৈরিতে সহায়তা করুন।

এসময় নতুন হল দুটি নির্মাণ ও চালুর ব্যাপারে সর্বাত্মক সহযোগিতার জন্য কৃতজ্ঞতা জানান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, শিক্ষা সচিবসহ সরকারের বিভিন্ন মহলকে।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন ট্রেজারার প্রফেসর মো. জালাল উদ্দিন, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. নজরুল ইসলাম, রেজিস্ট্রার কৃষিবিদ ড. মো. হুমায়ুন কবীর।

শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন প্রক্টর ড. উজ্জ্বল কুমার প্রধান, ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা দফতরের পরিচালক ড. তপন কুমার সরকার, বঙ্গবন্ধু নীল দলের সাধারণ সম্পাদক ড. সেলিম আল মামুন, শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. মুহাম্মদ এমদাদুর রাশেদ, কর্মকর্তা পরিষদের সভাপতি প্রকৌশলী মো. জোবায়ের হোসেন, নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মো.নজরুল ইসলাম বাবু ও সাধারণ সম্পাদক মো. রাকিবুল হাসান রাকিব।

উল্লেখ্য, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের ধারণক্ষমতা ১ হাজার ২৮৪ ও ১ হাজার ১৭৫ জন করে শিক্ষার্থী। চাবি হস্তান্তর প্রক্রিয়ার মধ্যদিয়ে শিক্ষার্থীদের বহুল প্রতীক্ষিত হল চালুর দাবিটি পূরণ হলো।

নয়া শতাব্দী/এস

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আমার এলাকার সংবাদ