ঢাকা | শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

যে শিক্ষকের নিবন্ধন সনদ বাতিল

প্রকাশনার সময়: ১৯ জুন ২০২১, ১৫:০৫

ভুল তথ্য দিয়ে নিবন্ধিত হওয়ায় পিরোজপুরের নেছারাবাদ উপজেলার পশ্চিম সোহাগদল শহীদ স্মৃতি বিএম কলেজের হিসাবরক্ষণ বিষয়ের প্রভাষক শ্রাবনীর নিবন্ধন সনদ বাতিল করেছে এনটিআরসিএ।

জানা যায়, দ্বাদশ শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় বিএম প্রতিষ্ঠানে হিসাবরক্ষণ বিষয়ের প্রভাষক পদের জন্য নিবন্ধিত হয়েছিলেন শ্রাবনী। তবে তিনি ম্যানেজমেন্ট বিষয়ে অনার্স করায় তার নিবন্ধন সনদটি বাতিল করা হয়।

এ বিষয়ে এনটিআরসিএ বলছে, ম্যানেজমেন্ট বিষয়ে অনার্স করে বিএম কলেজের হিসাবরক্ষণ পদে নিবন্ধিত হওয়ার সুযোগ নেই। বাতিল হওয়া সনদটি তিনি কোথাও ব্যবহার করলে তা ফৌজদারী অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে এনটিআরসিএর সংশ্লিষ্ট শাখার এক কর্মকর্তা বলেন, প্রভাষক শ্রাবণী ম্যানেজমেন্ট অনার্স করে বিএম কলেজের হিসাবরক্ষণ বিষয়ের প্রভাষক হতে নিবন্ধিত হয়েছিলেন। কিন্তু তিনি ভুল তথ্য দিয়ে নিবন্ধিত হয়েছিলেন। তার সনদ বাতিল করে গত ১৬ জুন বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দ্বাদশ শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা ২০১৫ এর বিজ্ঞপ্তিতে হিসাবরক্ষণ বিষয়ে বিএম শাখার প্রভাষক পদে নিবন্ধন পরীক্ষায় অংশগ্রহণের যোগ্যতা ছিল বা স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে স্নাতক ও ২য় শ্রেণির স্নাতকোত্তর ডিগ্রি বা সমমান, স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ৪ বছরের মেয়াদী ২য় শ্রেণি বা সমমানের স্নাতক ডিগ্রি। কিন্তু প্রভাষক শ্রাবনী অন্য বিষয়ে শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ দিয়ে হিসাবরক্ষণ বিষয়ের প্রভাষক হতে নিবন্ধন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন এবং উত্তীর্ণ হয়ে সনদ লাভ করেন।

আরো বলা হয়, ভুল শিক্ষাগত যোগ্যতা দিয়ে নিবন্ধন সনদ অর্জন করা অভিযোগে ‘বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা গ্রহণ ও প্রত্যয়ন বিধিমালা, ২০০৬’ এর ১২(২) বিধি অনুযায়ী তা তদন্ত করা হয়। তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে। এ পরিস্থিতিতে একই বিধি অনুসারে তার শিক্ষক নিবন্ধন সনদটি বাতিল করা হলো। বাতিলকৃত সনদ কোথাও ব্যবহার করলে তা ফৌজদারি অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, নিবন্ধন সনদ বাতিল হওয়ার শিক্ষকের নিয়োগ ও এমপিও বাতিল হবে।

আরআই

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
বেটা ভার্সন