ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ১৪ আষাঢ় ১৪২৯, ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

মিতালী এক্সপ্রেস: ৫৭ বছর পর চিলাহাটি-হলদিবাড়ি রুটে যাত্রীবাহী ট্রেন

প্রকাশনার সময়: ২৮ মে ২০২২, ১৭:৩৩

দীর্ঘ ৫৭ বছর পর চালু হতে যাচ্ছে বাংলাদেশের চিলাহাটি ও ভারতের হলদিবাড়ি পথে যাত্রীবাহী ট্রেন মিতালী এক্সপ্রেস। করোনাভাইরাস ও ভিসা সংক্রান্ত জটিলতার পর আগামী পহেলা জুন থেকে চালু হচ্ছে এ ট্রেন। ট্রেনটি চালু হলে চলাচল করবে ঢাকা থেকে নিউজলপাইগুড়ি পথে। আবারো এই পথে ট্রেন চলাচল করবে যেনে আনন্দিত হয়ে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন এলাকাবাসী। তবে ইমিগ্রেশন ও কাস্টমস ক্লিয়ারেন্স ব্যবস্থা চালু রেখে এখান থেকে যাত্রী নেওয়ার দাবি তাদের।

১৯৬৫ সালে ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধের পর বাংলাদেশের চিলাহাটি আর ভারতের হলদিবাড়ি পথে বন্ধ হয়ে যায় ট্রেন চলাচল। ৫৫ বছর পর ২০২০ সালের ১৭ ডিসেম্বর মালবাহী ট্রেন এবং ২০২১ সালের ২৭ মার্চ যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচলের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এরপর থেকে মালবাহী ট্রেন চলাচল করলেও করোনা ভাইরাস ও ভিসা সংক্রান্ত জটিলতায় আটকে যায় যাত্রীবাহী ট্রেন মিতালী এক্সপ্রেস চলাচল।

মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেনটি ঢাকার সেনানিবাস স্টেশন ও ভারতের নিউজলপাইগুড়ির পথে চলাচল করবে। সপ্তাহে দুইদিন ট্রেনটি চলাচল করবে। ঢাকা থেকে ছাড়বে বৃহস্পতিবার ও সোমবার এবং ভারত থেকেও আসবে দুইদিন বাংলাদেশে। তবে এ মাসের শেষ দিকে রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সরকারি সফরে ভারতে যাওয়ার কথা রয়েছে। সেখানে গিয়ে আগামী ১ জুন ভার্চ্যুয়ালি মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেনের যাত্রা উদ্বোধন করবেন তিনি।

রেলওয়ে সূত্র জানা গেছে, মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেনের জন্য নতুন করে ভাড়ার নির্ধারণ করেছে দুই দেশের রেলওয়ে বিভাগ। চার হাজার ৯০৫ টাকা এসি বার্থের ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে। আর এসি সিটের ভাড়া তিন হাজার ৮০৫ টাকা, এসি চেয়ারের দুই হাজার ৭০৫ টাকা, চিলাহাটি থেকে নিউজলাপাইগুড়ি এক হাজার ২৫০ টাকা।

মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেন থেকে যা আয় হবে তা দুই দেশের রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ভাগ করে নিবেন। এই পথে মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেনটি চালু হলে বাংলাদেশের রেলওয়ে বিভাগ আয়ের ৮০ শতাংশ আর ২০ শতাংশ পাবে ভারতীয় রেলওয়ে বিভাগ।

পহেলা জুন দুপুর ১২.১০ মিনিটে নিউজলপাইগুড়ি থেকে ছাড়বে মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেন। চিলাহাটিতে এসে ট্রেনটি ৩০ মিনিট যাত্রা বিরতি পর ঢাকা ক্যান্টম্যান্টে পৌছবে রাত ১০.৩০ মিনিটে। পরের দিন সোমবার মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেনটি ঢাকা সেনানিবাস ষ্টেশন থেকে রাত ৯.৫০ মি: ছেড়ে যাবে ভারতের নিউজলপাইগুড়ি। সেখানে পৌছবে সকাল ৭.৫ মিনিটে। ট্রেনটি দিনের বেলায় ৪৫৬ আসন এবং রাতে ৪০৮ আসন নিয়ে চলাচল করবে। ঢাকা থেকে ভারতের নিউজলপাইগুড়ির দূরুত্ব ৫৯৫ কি.মি। এর মধ্যে ভারতের অংশে ৬৯ কি.মি.।

এই ট্রেনে থাকছে ১০টি তাপানুকুল কোচ। এর মধ্যে চারটি করে আটটি এসি ফাস্টক্লাস ও এসি চেয়ার কোচ। বাকি দুইটি জেনারেটর ও ব্রেকআপ ভ্যান থাকবে। পাঁচ বছর পর্যন্ত অপ্রাপ্ত বয়ষ্কদের জন্য মূল ভাড়ার ৫০ শতাংশ ছাড় দেওয়া হয়েছে এবং পাঁচ বছরের কমবয়সী যাত্রীর ক্ষেত্রে ২০ কেজি ওজনের মালামাল বহন করতে পারবেন। ট্রেনের টিকিট পাওয়া যাবে বাংলাদেশ অংশে ঢাকা, কমলাপুর, চট্টগ্রাম ও নীলফামারীর চিলাহাটি স্টেশন এবং ভারতের অংশে কলকাতার ফেয়ারলী প্যালেস ও নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন।

উল্লেখ্য, মিতালি এক্সপ্রেস ট্রেনে চিলাহাটির জন্য আলাদা দুইটি কোচ বরাদ্দ থাকবে, ওই কোচ দুইটিতে ১শ’ টি আসন থাকবে বলে জানা গেছে। ভারত সরকারের প্রটোকল অনুসারে ভ্রমণকারী যাত্রীরা ৭২ ঘণ্টা আগে আরপিসি আর কোভিড টেস্ট কিংবা দুই ডোজ টিকা গ্রহণের সনদ সংগ্রহ করতে হবে।

সব কিছুর অবসান কাটিয়ে দীর্ঘ ৫৭ বছর পরে ঘুরতে যাচ্ছে যাত্রীবাহী ট্রেনের চাকা। তবে ওপার বাংলায় যাতায়াতে নানান সমস্যায় পড়েছেন এ অঞ্চলের মানুষেরা।

চিলাহাটি ডাক বাংলো সড়ক এলাকার মোহাব্বদ হোসেন বাবু জানান, নীলফামারীর চিলাহাটি রেলস্টেশনে ইমিগ্রেশন সিস্টেম না থাকায় এই এলাকার মানুষ ভারতে যেতে পারবে না। তাদের ভারতে যেতে হলে ঢাকা থেকে ইমিগ্রেশন করে আসতে হবে। এতে আমাদের দুর্ভোগে পড়তে হবে। আমাদের দাবি এখানে যাতে দ্রুত ইমিগ্রেশন ও কাস্টমস ক্লিয়ারেন্স ব্যবস্থা চালু করার।

কামার পাড়া গ্রামের মৃত. জাকারিয়া বুসনিয়ার ছেলে রাসেল বসুনিয়া জানান, আমরা চিকিৎসার জন্য যাতায়াত করি ভারতে। মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেনটি চালু হলে চিলাহাটি দিয়ে ভারত চলাচলে আমাদের অনেক সুবিধা হবে। কিন্তু এখানে দুইটি বগি দেওয়া হয়েছে। ওই দু’টি বগিতে চলাচল করবে উত্তরাঞ্চলের মানুষ। এতো কম সংখ্যক আসন দেয়াতে আমাদের আসন পেতে ভোগান্তি পোহাতে হবে। তাই মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেনের বগি বাড়ানোর দাবি জানাচ্ছি।

ডোমার উপজেলা কলেজ পাড়া গ্রামের জেনারুল ইসলামের মেয়ে জান্নাত আক্তার জ্যামি বলেন, মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেনটি চালু হলে ভারতের দর্শনীয় স্থানগুলোতে অল্প সময়ের মধ্যে স্বল্প খরচে আমরা যেতে পারবো। দুই দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থা চালু হলে সম্পর্ক আরো গভীর হবে এবং ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসার ঘটবে। এজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ধনবাদ জানাই।

নীলফামারী জেলা প্রশাসক খন্দকার ইয়াসির আরেফীন বলেন, রেল সূত্রে জানতে পেরেছি যে, পহেলা জুন সকালে নীলফামারীর চিলাহাটি দিয়ে মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেনটি ঢাকায় প্রবেশ করবে। করোনা ভাইরাসের কারণে মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেনটি চলাচল বন্ধ ছিলো। ইমিগ্রেশন ও কাস্টমস জটিলতা থাকার কারণে চিলাহাটি স্থলবন্দরে ভিসা এবং টিকিটের কার্যক্রম সম্পূর্ণ করা যাচ্ছে না। আপাতত ঢাকা থেকে ভিসা এবং টিকিটের কার্যক্রম সম্পূর্ণ করা হচ্ছে। আমরা রেল মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছি যাতে উত্তরবঙ্গের মানুষের জন্য ভিসা এবং টিকিট চিলাহাটি স্থালবন্দরে ব্যবস্থা করা হয়। আশা করছি অতি দ্রুত এর সুফল পাব।

নয়াশতাব্দী/জেডআই

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আমার এলাকার সংবাদ