ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ১৪ আষাঢ় ১৪২৯, ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

চেয়ারম্যান পরিবারের বিরুদ্ধে গৃহকর্মীকে মারধরের অভিযোগ

প্রকাশনার সময়: ২৩ মে ২০২২, ০৪:০৩

চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলার ঈশানবালা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাউদ আল নাছের ও তার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে গৃহকর্মীকে মারধর করে আহত করার অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগী নারী মনোয়ারা বেগম (৩৬)।

রোববার (২২ মে) দুপুরে ভুক্তভোগী মনোয়ারা বেগম বাদি হয়ে চেয়ারম্যান সউদ আল নাছের, তার মাতা লুৎফা বেগমসহ প্রায় ৮ জনের বিরুদ্ধে হাইমচর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেন। এর আগে ২০ মে পুলিশের সহায়তায় মনোয়ারা হাইমচর উপজেলায় চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করেন। বৃহস্পতিবার (১৯ মে) রাত সাড়ে ৮ টায় ঈশানবালায় এ ঘটনা ঘটে।

মনোয়ারা বেগম হাইমচর উপজেলার ঈশানবালা ইউনিয়নের মিজান হাওলাদারের স্ত্রী। তিনি ঈশানবালা আশ্রায়ণ প্রকল্পের নূরজাহান টিলার ৪৪ নং রুমে থাকেন।

আহত মনোয়ারা বেগম বলেন, ঈশানবালা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাউদ আল নাছের এর বাড়িতে আমি গৃহকর্মীর কাজ করতাম। আমি কয়েক মাসের কাজের টাকা পাইতাম। টাকা চাইলে চেয়ারম্যানের মা লুৎফা বেগম আমাকে প্রায়ই চর থাপ্পর দেন। গত বুধবার আমি পুনরায় টাকা চাইতে গেলে চেয়ারম্যানের মা হুমকি-ধমকি দিয়ে ঘর থেকে বের করে দেয়। পরের দিন বৃহস্পতিবার আমাকে ঘর থেকে ডেকে নিয়ে চেয়ারম্যান সউদ আল নাছের, তার মা লুৎফা বেগম, রিয়াজ, সলেমান, খোকন, স্বপ্না, দেলওয়ার ও তার স্ত্রী নূরজাহান মারধর করে। বর্তমানে আমি ও আমার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছি।

ঈশানবালা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাউদ আল নাছের বলেন, মনোয়ারা বেগম আমাদের বাড়িতে ঈদুল ফিতরের আগে কাজ করেছে। এখন কাজ করে না। যখন কাজ করেছে, তখন একদিন মেঝেতে পড়ে গিয়ে আহত হয়। তাকে আমরা চিকিৎসা করিয়েছি। আমাদের পরিবারের কোন সদস্য তাকে মারধর করেনি। তার কাজের পাওনা টাকা দিয়ে দিয়েছি। নতুন করে বিষয়টি আমাদের প্রতিপক্ষ লোকজন মিথ্যাচার করছে।

হাইমচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আশরাফ উদ্দিন জানান, একজন মহিলা থানায় অভিযোগ দিয়েছে। অভিযোগের আলোকে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নয়া শতাব্দী/এমআরএইচ

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আমার এলাকার সংবাদ