ঢাকা | শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

ইউপি নির্বাচন : মুখোমুখি দুই ভাই, স্বামীর প্রতিদ্বন্দ্বী স্ত্রী!

প্রকাশনার সময়: ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১০:৩১

ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া উপজেলার ১০নং কালাদহ ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন একই পরিবারের তিন জন। এই ইউপিতে মনোনয়ন জমা দেওয়া তিনজনের প্রার্থীতা বৈধ ঘোষণা করেছে রিটার্নিং অফিসার। প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ সময় আগামী ২৬ অক্টোবর। ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে ভোটগ্রহণ।

একই পরিবারের তিন প্রার্থী হলেন ফজলুল হক চৌধুরী তার ছোট ভাই নূরুল ইসলাম চৌধুরী এবং ফজলুল হকের স্ত্রী নাসিমা আক্তার। ফজলুল হক ও নূরুল ইসলাম কালাদহ ইউনিয়নের শিবরামপুর গ্রামের প্রয়াত মোজাফফর আলী চৌধুরীর ছেলে।

একই পরিবার থেকে তিনজন স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হওয়ার ঘটনা এখন উপজেলায় বেশ সাড়া ফেলেছে।

কালাদহ ইউপি নির্বাচনে অন্য প্রার্থীরা হলেন, আ.লীগ মনোনীত নৌকা প্রতিকের প্রার্থী মো. ইমান আলী মাষ্টার, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত মো. মাতলুবুর রহমান, স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান নূরুল ইসলাম মাষ্টার, নজরুল ইসলাম, মো. আবু তাহের, মো. ওয়াহিদুল ইসলাম চৌধুরী ও শামছুন নাহার বকুল।

একই পরিবার তিনজন প্রার্থী হওয়ার বিষয়টি ‘বাজে উদাহরণ’ হিসেবে মনে করেন প্রতিদ্বন্দ্বী অন্য চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। তাঁরা বলেন, বিষয়টি রীতিমতো অনৈতিক। যেকোনো মূল্যে হোক, ক্ষমতায় থাকতেই হবে, এমন মানসিকতা থেকেই স্বামী-স্ত্রী এবং ভাই মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। যাতে করে একজনের মনোয়ন অবৈধ হলে অন্যজন টিকে থাকতে পারেন।

অপরদিকে স্বামী–-স্ত্রী ফজলুল হক ও নাসিমা আক্তার দুজনেই মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষনা করা হলেও তাঁরা নির্বাচনে একে অপরের প্রতিদ্বন্দ্বী থাকবেন না বলে জানিয়েছেন ফজলুল হক।

তিনি বলেন, ‘আমার স্ত্রীকে ব্যাকআপ হিসেবে প্রার্থী করিয়েছি। এটা একটি কৌশল। এছাড়াও আমার ছোট ভাই নূরুল ইসলাম প্রার্থী হয়েছে।

জটিলতার কারণে যদি আমার মনোনয়নপত্র বাতিল হয়ে যায়, সেজন্যই স্ত্রীকে ব্যাকআপ হিসেবে রেখেছি। আমার স্ত্রী ও ছোট ভাইসহ আমাদের তিনজনেরই মনোনয়ন বৈধ হয়েছে। এখন আলোচনা সাপেক্ষে যে কোনো একজন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবো।

নয়া শতাব্দী/এসএম

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
বেটা ভার্সন