ঢাকা | শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

কচুর লতিতেই টাকা উসুল দুলালের

প্রকাশনার সময়: ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৮:৫৬ | আপডেট: ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৯:০৫

ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া উপজেলার কৈয়ারচালা গ্রামের দরিদ্র কৃষক দুলাল মিয়া ১৫ শতাংশ জমি লিজ নিয়ে কচু চাষ করেন। ক্ষীরু নদীর পাড় ঘেঁষা লিজকৃত জমিতে ১২ শতাধিক কচু চারা রোপন করেন । পরে পরিচর্যা, সার কীটনাশক ও লীজের টাকাসহ তার মোট ২০ হাজার টাকা খরচ হয়।

পরবর্তীতে কচুর চারাগুলো বড় হওয়ার পর প্রতটি কচু গাছ হতে লতি গজানো শুরু করে। আর সেই লতি তুলে ৪০ থেকে ৪৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি করেন।

এ পর্যন্ত সে প্রায় ২৫ হাজার টাকা লতি বিক্রি করেছে। অর্থাৎ লিজকৃত জমিতে কচু চাপা রোপনসহ যা খরচ হয়েছিল তা উঠে আসে লতি বিক্রি থেকেই। কচু গাছে এখনো যে পরিমান লতি রয়েছে তাতে তিনি ধারনা করছেন অন্তত আরো ১০ থেকে ১২ হাজার টাকার লতি বিক্রি করতে পারবেন।

কৃষক দুলাল বলেন লতি বাদ দিয়েও যে পরিমান কচু জমিতে রয়েছে তা অনায়াসে ৫০ থেকে ৫৫ হাজার টাকা বিক্রি করতে পারবেন। কৃষক দুলাল মিয়া বলেন , ইউনিয়নের পর্যায়ের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের সঠিক পরামর্শ যদি নিয়মিত পাই এবং কৃষি অফিস থেকে উন্নতমানের চারা, সার, কীটনাশক পেলে আমি আরো অধিক মুনাফা অর্জন করতে পারব।

উপজেলা কৃষি অফিসার জেসমিন নাহার বলেন, কচু একটি লাভজনক ফসল। কৃষক দুলাল চাইলে কৃষি অফিস থেকে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে।

নয়া শতাব্দী/এসএম

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
বেটা ভার্সন