ঢাকা | শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২ আশ্বিন ১৪২৮

থামছে না নেত্রকোনা সীমান্তে চোরাচালান 

মনিরুজ্জামান মহসিন

প্রকাশনার সময়

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:০৫

আপডেট

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:০৬

নেত্রকোনা সীমান্তে চোরাকারবারীদের কালো হাতের থাবা যেন থামছেই না। দুর্গাপুর ও কলমাকান্দা সীমান্তে ভারতীয় পণ্য পাচার বেড়েই চলেছে। ক্রমেই বেপরোয়া হয়ে ওঠছে চোরাকারবারীরা। বিজিবির অভিযানে প্রায় প্রতিদিনই আটক হচ্ছে ভারত থেকে চোরাই পথে আসা মাদকসহ কোন না কোন ভারতীয় পণ্য। ধরা পড়ছে চোরাকারবারী দলের সদস্যরা।

সর্বশেষ আজ মঙ্গলবার ভোরে জেলার দুর্গাপুর উপজেলার ভরতপুর, লক্ষীপুর ও লেঙ্গুরা সীমান্তে বিজিবির সদস্যরা অভিযান চালিয়ে প্রায় ৬৪ লাখ টাকার চোরাই মালমাল আটক করে। এরমধ্যে রয়েছে প্রায় ২ হাজার কেজি ভারতীয় চা পাতা, শাড়ি, থ্রিপিস ও প্রসাধনী সামগ্রী। এর আগে গতকাল সোমবারও বিজিবির সদস্যরা দুর্গাপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী লক্ষীপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে প্রায় ২৫ লাখ টাকা মূল্যের বিপুল পরিমাণ ভারতীয় শাড়ি আটক করে।

নেত্রকোনা ব্যাটালিয়ন (৩১ বিজিবি) সূত্রে জানা গেছে, গত জানুয়ারি মাস থেকে মঙ্গলবার পর্যন্ত বিজিবি’র সদস্যরা প্রায় ৭ কোটি টাকা মূল্যের বিভিন্ন মালামাল আটক করে। এরমধ্যে দুই হাজার ৫৪৬ বোতল ভারতীয় মদ ও ৯৩ পিস ইয়াবাও রয়েছে। চোরাচালান ও মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়ে এসব মালামাল আটক করা হয়। অভিযানের সময় ১৮ জন চোরাকারবারীকেও আটক করা হয়। এছাড়াও বিভিন্ন সময়ে পুলিশ ও র‌্যাবের সদস্যদের হাতেও ধরা পড়ে চোরাকারবারীরা। আটক হয় ভারতীয় অবৈধ মাদক ও বিভিন্ন মালামাল।

জানা গেছে, নেত্রকোনার দুর্গাপুর ও কলমাকান্দা উপজেলা দুইটি ভারতের সীমান্ত ঘেষাঁ। এই দুই উপজেলার সীমান্তবর্তী দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় চোরাকারবারীরা শক্তিশালী সিন্ডিকেট গড়ে তুলেছে। এই সিন্ডিকেটের সদস্যরা রাতের আধাঁরে অবধৈভাবে ভারতের কাঁটাতারের বেড়া ডিঙ্গিয়ে ভারতীয় মদসহ বিভিন্ন মালামাল বাংলাদেশের অভ্যন্তরে নিয়ে আসে। পরে বিজিবির সীমান্ত ফাঁড়ির সদস্যদের চোখ ফাঁকি দিয়ে ওই সব পণ্য বিক্রির জন্য নিয়ে যাওয়ার সময় ধরা পড়ছে বিজিবি’র হাতে। মালামাল ফেলে পালিয়েও যাচ্ছে অনেক চেরাকারবারী।

নয়া শতাব্দী/এমআর

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
বেটা ভার্সন
x