ঢাকা | মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩ আশ্বিন ১৪২৮

নান্দাইলে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিত্যক্ত ভবনে লুটপাট

নান্দাইল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

প্রকাশনার সময়

০৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:২৩

ময়মনসিংহের নান্দাইলে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিত্যক্ত ভবনে লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। চার পাশ ও ভিতরের দেওয়াল ভেঙে ইট, দরজা, জানালা, গ্রিল,কাঠ ও চালের কিছু টিন খুলে নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। বর্তমানে পিলারের উপর ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় দাঁড়িয়ে আছে ভবনটি। এর ফলে যে কোনো মুহূর্তে ঘটতে পারে বড় ধরণের দু্র্ঘটনা।

উপজেলার বীরবেতাগৈর ইউনিয়নে খড়িয়া গ্রামে এই ১০ নং খড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিত্যক্ত ভবনটি অবস্থিত। বিদ্যালয়ের ৪ কক্ষ বিশিষ্ট পুরাতন এ ভবনটি কয়েক বছর আগে পরিত্যক্ত ঘোষণার পরপরই শুরু হয় লুটপাট।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, বিদ্যালয়টির মাঠে নতুন একটি ভবন হয়েছে। ২০১৪ সালে নতুন ভবনে ক্লাশ শিফট হওয়ার পর থেকেই পরিত্যক্ত ভবনে লুটপাট শুরু হয়। পরিত্যক্ত ভবনটির চারপাশ ও ভিতরের দেওয়াল ভাঙা। ইট, দরজা, জানালা, গ্রিল,কাঠ কিছুই নেই। চালের কিছু টিনও খুলে নিয়ে গেছে কতিপয় দুর্বৃত্ত।

স্থানীয়রা জানান, বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের উদাসিনতার সুযোগে রাতের আঁধারে যে যার মতো সব খুলে খুলে নিয়ে যাচ্ছে। যেন দেখার কেউ নেই।

বিদ্যালয়ের জমিদাতা সদস্য প্রধান শিক্ষিকার শ্বশুর মো.আব্দুর রাজ্জাক লুটপাটের বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, ‘পরিত্যক্ত ভবনের ইট পাশেই স্তুুপ করে রাখা হয়েছে।’

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা সুফিয়া খাতুন বলেন, ‘পরিত্যক্ত ভবনটি নিলামে দেওয়ার জন্য বিগত প্রায় ৪ মাস পুর্বে এডহক কমিটির রেজুলিউশন ও বিদ্যালয়ের ছবিসহ আমি শিক্ষা অফিসকে লিখিতভাবে জানিয়েছি। কিন্তু অফিস কোন পদক্ষেপ নেয়নি।’

নান্দাইল উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ আলী সিদ্দিক বলেন, ‘এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশল অফিসকে অবগত করা হয়েছে। তারা সরকারি মূল্য নির্ধারণ করে দিলে আমরা নিলামে দিবো।ভবনটি লুটপাটের বিষয়ে প্রধান শিক্ষক থানায় একটি জিডি করবে।’

নয়া শতাব্দী/জেআই

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
বেটা ভার্সন
x