ঢাকা | রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৪ আশ্বিন ১৪২৮

জিন হাজিরের নামে নিঃসন্তান নারীদের যৌন হয়রানি, অতঃপর...

বগুড়া প্রতিনিধি

প্রকাশনার সময়

০৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:১১

জিন হাজিরের মাধ্যমে নিঃসন্তান নারীদের যৌন হয়রানির অভিযোগে বগুড়ার শিবগঞ্জ থানা পুলিশ হাফেজ রোমান ওরফে রুম্মান হাসন (২৪) নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারের পর তার আস্তানায় অভিযান চালিয়ে মৃত মানুষের মাথার খুলি যৌন উত্তেজক ওষুধ,যাদু টোনা করার সরঞ্জাম ও অসংখ্য তাবিজ উদ্ধার করেছে।

শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর) রাতে শিবগঞ্জ উপজেলার বিহার ইউনিয়নের বিহার ফকিরপাড়া গ্রামে আস্তানা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

হাফেজ রুম্মান হাসান বিহার ফকির পাড়ার আজাহার আলী ফকিরের ছেলে।

স্থানীয়রা জানান, আজাহার আলী ফকির দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় তাবিজ কবজ করে মানুষের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করে আসছিলেন। তার ছেলে রোমান ওরফে রুম্মান হাসান স্থানীয় একটি কওমী মাদ্রাসায় লেখা পড়া শেষ করে তার বাবার সাথে তাবিজ কবজের ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েন।

এক পর্য়ায় রুম্মান বাড়িতেই আস্তানা খুলে বসে। সেখানে দুর দুরান্ত থেকে নারীরা আসতো বিভিন্ন সমস্যার সমাধান নিতে। রুম্মান এলাকায় প্রচার করতো তিনি জিন হাজিরের মাধ্যমে ভবিষ্যত বানী দিতে পারেন। এ কারণে নিঃসন্তান নারী ও প্রবাসীদের স্ত্রীরা তার বাড়িতে ভীড় জমাতো। স্বামী- স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া বিবাদ মিটিয়ে দেয়া, প্রেমের সস্পর্ক স্থাপন করে দেয়া থেকে শুরু করে সব ধরনের সমস্যার সমাধানের নামে তিনি নারীদের যৌন হয়রানী ছাড়া টাকা পয়সা হাতিয়ে নিতেন।

কিন্তু সামাজিক মান সম্মানের ভয়ে কেউ তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করতো না। গত শনিবার শিবগঞ্জ থানার আটমুল ইউনিয়নের চক কানু গ্রামের এক ব্যক্তির অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ বাড়ি থেকে রুম্মান হাসানকে গ্রেফতারের পর তার আস্তানায় অভিযান চালায়।

এসময় সেখান থেকে মৃত মানুষের মাথার একটি খুলি, যৌন উত্তেজক ওষুধ,যাদুর ঝুলি, বিভিন্ন সরঞ্জাম, তাবিজ কবজ উদ্ধার করে।

শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সিরাজুল ইসলাম জানান, গ্রেফতারের পর রোমানের বিরুদ্ধে নারীদের যৌন হয়রানীর অসংখ্য অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে।

নয়া শতাব্দী/এসএম

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
বেটা ভার্সন
x