ঢাকা | রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১ আশ্বিন ১৪২৮

টাঙ্গাইলে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ অনুষ্ঠিত 

আব্দুল্লাহ আল নোমান, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

প্রকাশনার সময়

০৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:৪৯

টাঙ্গাইলের বাসাইলে বাসুলিয়ায় চাপড়া বিলে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার বিকেলে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক মিয়া স্মৃতি সংসদের উদ্যোগে এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করে।

চাপড়া বিলে প্রতি বছর নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এ দিনে পুরুষের পাশাপাশি নারীদের উপস্থিতিও ছিলো চোখে পড়ার মতো।

গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ দেখতে দুপুর থেকেই দর্শনার্থীদের ঢল নামে ওই এলাকায়। আশপাশসহ পাশ্ববর্তী জেলার বৃদ্ধ ও শিশুসহ বিভিন্ন বয়সের লক্ষাধিক মানুষ নৌকা বাইচ দেখতে আসেন।

এই প্রতিযোগিতা উপলক্ষে ব্যাপক প্রচার প্রচারণার চালানো হয়। জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে সুসজ্জিত নৌকা আর রং বে-রঙ্গের বাহারি পোশাক পড়ে এই প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়। বাদ্যযন্ত্রের তালে তালে আর বৈঠার ফেলার ছপ ছপ শব্দ যেন একাকার হয়ে গিয়েছিল চাপড়া বিলে। কেউ কেউ ছোট নৌকা ভাড়া করে পরিবার পরিজন নিয়ে বিলের বিভিন্ন স্থানে অবস্থান নেয়। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পর্যাপ্ত পরিমান পুলিশ দায়িত্ব পালন করে। সন্ধ্যার দিকে শেষ হয় এই প্রতিযোগিতা।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য জোয়াহেরুল ইসলাম জোয়াহের। এ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক আতাউল গণি।

এতে প্রধান আলোচক ছিলেন ঢাকার আনোয়ার খান মডার্ণ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের কিডনী বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. আব্দুস সামাদ।

বাসাইল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী অলিদ ইসলামের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বরেণ্য অতিথী ছিলেন, কৃষি মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব হাসানুজ্জামান কল্লোল, সমবায় অধিদপ্তরের মহা-পরিচালক হারুন অর রশিদ বিশ্বাস, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব একে এম মোখলেছুর রহমান, টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায়। স্বাগত বক্তব্য রাখেন অর্থ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব আমিন শরীফ সুপন।

অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মনজুর হোসেন, ঘাটাইল ক্যান্টনমেন্টের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শামছুন নাহার স্বপ্না, সখীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা চিত্রা শিকরী, টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের সভাপতি জাফর আহমেদ প্রমুখ।

প্রতিযোগিতায় নারায়ণগঞ্জ, সিরাজগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, পাবনা ও টাঙ্গাইলে কয়েকটি উপজেলা থেকে অর্থশত নৌকা অংশ গ্রহণ করে।

প্রতিযোগিতার টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরের ‘সোনার তরী’ নৌকা চ্যাম্পিয়ন হয়। রানার্স আপ হয় দেলদুয়ার উপজেলার হিরার তরী। পরে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন অতিথিবৃন্দ।

নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা দেখতে আসা দর্শনার্থী ডা. আব্দুল্লাহ আল আরিফ বলেন, করোনাকালে জনজীবন স্থবির হয়ে পড়েছে। নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা দেখতে পেরে আমিসহ আমার পরিবার অনেক মুগ্ধ হয়েছি। আমরা সবাই অনেক আনন্দিত হয়েছি। প্রতি বছর এ প্রতিযোগিতকার আয়োজন করার দাবি জানাচ্ছি।

টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলা থেকে আগত নৌকা বাইচে অংশগ্রহণকারী কৃষ্ণতলা সরকার বলেন, বিগত কয়েক বছর ধরে আমরা এ প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণ করছি। নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পেরে ভালো লেগেছে। এবার আমরা দ্বিতীয় হয়েছি।

এ ব্যাপারে স্থানীয় সংসদ সদস্য জোয়াহেরুল ইসলাম জোয়াহের বলেন, নৌকা আমার অতিত্ত, বাংলাদেশ আমার অতিত্ত, বঙ্গবন্ধু আমার অতিত্ত। তারই আলোকে গ্রাম বাংলার ঐতিয্যবাহী এ নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। এ ধারাবাহিতা ভবিষ্যতেও অব্যহত থাকবে।

নয়া শতাব্দী/এম

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়
বেটা ভার্সন
x