শনিবার, ০১ এপ্রিল ২০২৩, ১৮ চৈত্র ১৪২৯

টালমাতাল বরিশাল বিএনপি

প্রকাশনার সময়: ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২২:৩১

বরিশাল কমিটি ঘোষণা করে অনেকটা বেকায়দায় রয়েছে বরিশাল মহানগর, জেলা দক্ষিণ ও উত্তর শাখা বিএনপি। সাংগঠনিক শক্তি জানান দিতে গিয়ে হঠাৎ নিজেদের অনলে পুড়ছে বরিশালের সবগুলো ইউনিট। এতে আহবায়ক কমিটিগুলো আবার নতুন করে সাজানোর পাশাপাশি কাউন্সিলের মাধ্যমে কমিটি ঘোষণার দাবি উঠেছে তৃণমূল থেকে। গেল ২০২১ সালের ৩ নভেম্বর বরিশাল মহানগর এ, জেলা দক্ষতার ও উত্তরে নতুন আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করে বিএনপির হাইকমান্ড।

শুরু থেকে সেই কমিটি একাধিক সফল কর্মসূচি করলেও তাদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, কমিটি গঠনের নামে অর্থ আদায়সহ স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ ওঠে। গেল ২০২২ সালের ডিসেম্বরে স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগে দক্ষিণ জেলা বিএনপির কমিটি থেকে আহবায়ক মজিবুর রহমান নান্টু ও সদস্যসচিব আকতার হোসেন মেবুলকে সরিয়ে দেয় হাইকমান্ড। সেখানে নতুন করে সাবেক সাংসদ আবুল হোসেনকে আহবায়ক ও আবুল কালাম শাহীনকে সদস্যসচিব করা হয়। কিন্তু বিতর্ক পিছু ছাড়ছে না তাদেরও।

গত ৫ ফেব্রুয়ারি বরিশাল সদর উপজেলা কমিটি ভেঙে দিয়ে নতুন কমিটি ঘোষণা করলে সেখানে কোনো বিক্ষোভ না হলেও দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক আবুল হোসেনের নিজ উপজেলা বাকেরগঞ্জে নতুন কমিটি ঘোষণা দিয়ে বিপাকে আছে বিএনপি। সেখানে নতুন কমিটির বিরুদ্ধে ঝাড়ু মিছিল থেকে শুরু করে আহবায়ককে নিজ এলাকায় অবাঞ্চিত ঘোষণা করা হয়েছে। ওই একই অবস্থা উত্তর জেলা বিএনপিতে। সদ্য ঘোষণা হওয়া গৌরনদী ও মুলাদী কমিটি বাতিলের দাবিতে বরিশাল নগরীতে বিক্ষোভ ও ঝাড়ু মিছিল হয়েছে।

আলাপ করা হয় বরিশাল সদর উপজেলার সদ্য বিলুপ্ত হওয়া আহবায়ক নুরুল আমিনের সাথে। তিনি বলেন, কোনরূপ আলোচনা ছাড়াই তারা আমার কমিটি বাতিল করেছে। গঠনতন্ত্র বিবেচনা না করে আমি আহবায়ক ছিলাম, আমাকে যুগ্ম আহবায়ক করা গঠনতন্ত্র পরিপন্থি। আমি কেন্দ্রে জানিয়েছি, তারা ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেওয়ায় চুপ আছি।

তবে দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক আবুল হোসেন বলেন ভিন্ন কথা। তিনি জানান,আমার আগে যাদের কমিটি ছিল তারা ব্যাপক অর্থ বাণিজ্য ও স্বেচ্ছাচারিতার আশ্রয় নিয়ে কিছু কমিটি করেছিল। সুনির্দিষ্ট আর্থিক লেনদেনের অডিও রেকর্ড রয়েছে। তাই কিছু কমিটি বাতিল করে নতুন কমিটি করা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে আমরা ভোটের মাধ্যমে ফেসবুক লাইভ করে কমিটি গঠন করেছি। এক্ষেত্রে কোনো স্বোচ্ছাচারিতার আশ্রয় নেওয়া হয়নি।

২০২১ সালের ডিসেম্বরে গঠন হওয়া বরিশাল মহানগর বিএনপি এখনো ৩০টি ওয়ার্ডের কমিটি ঘোষণা করতে পারেনি। গত বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর প্রথমবারের মতো ৯টি ওয়ার্ডের আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করার পর আরও ১০টি ওয়ার্ডের কমিটি ঘোষণা দিয়ে বিপাকে পড়ে তারা। ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে বিক্ষোভ মিছিল ও সমালোচনার জন্ম দেওয়ার পর কমিটি গঠন প্রক্রিয়া বন্ধ করে দেয় বিএনপি। তাদের বিরুদ্ধে নতুন ও জাতীয় পার্টির লোক দিয়ে কমিটি গঠনের অভিযোগ রয়েছে।

এ প্রসঙ্গে বরিশাল মহানগর বিএনপির সাবেক সভাপতি ও কেন্দ্রীয় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মজিবর রহমান সরোয়ার বলেন, কমিটি গঠনের নামে জাহিদ (সদস্যসচিব) নিজেকে শক্তিশালী করেছে, বিএনপিকে নয়। তিনি মনে করেন কাউন্সিলের মাধ্যমে খুব শীঘ্রই পুনাঙ্গ কমিটি গঠন করা হবে। তবে মহানগর বিএনপি অতীতের যেকোন সময়ের চেয়ে শক্তিশালী উল্লেখ করে সদস্য সচিব মীর জাহিদুল কবির জাহিদ বলেন, কমিটি গঠন করার জন্য সাংগঠনিক টিম করে দেওয়া হয় এবং সেই টিম ওয়ার্ড কমিটি গঠন করে। আমরা সকল কর্মসূচিতে নিজেদের সফল অবস্থান জানান দিয়েছি। একের পর এক কর্মসূচি চলে সেখানে সকল কর্মসূচির হোস্ট থাকে মহানগর বিএনপি। তাই এখনও ৭/৮টি কমিটি ঘোষণা করা সম্ভব হয়নি। খুব শীঘ্রই কমিটি ঘোষণা করা হবে।

বরিশাল বিভাগীয় টিম লিডার ও কেন্দ্রীয় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টু বলেন, বিএনপি একটি বৃহৎ দল। এখানে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা আছে। কমিটিতে কেউ বাদ পড়তেই পারে। এক্ষেত্রে রাগ ক্ষোভ না করে সমঝোতার মাধ্যমে দল চালালে ভালো হবে বলে মনে করছেন তিনি। পাশাপাশি খুব শীঘ্রই মহানগরসহ সবগুলো ইউনিটে পূর্ণাঙ্গ কমিটি করা হবে বলেও জানান তিনি।

নয়াশতাব্দী/এফআই

নয়া শতাব্দী ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

এ সম্পর্কিত আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আমার এলাকার সংবাদ